০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, বুধবার,
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
K T V Clock
Fourth Pillar: কাশ্মীর ফাইলস,অস্কার নমিনেশন এবং ডাহা ঢপ বাজির কিসসা
কলকাতা টিভি ওয়েব ডেস্ক
কলকাতা টিভি ওয়েব ডেস্ক Published By:  সুদেষ্ণা নাথ
  • আপডেট সময় : ১৯-০১-২০২৩, ৯:০২ অপরাহ্ন

আমি.........। বাংলার গোখরো,মিঠুন চক্রবর্তি। এমনিতে ফেসবুক বা টুইট করেন না, নিজে করতে পারেন বলেও মনে হয় না, জনসভায় যে লোফার সুলভ ভাষায় কথা বলেন তা দেখেও মনে হয় না যে উনি নিজে টুইট করার মত বিদ্যেবুদ্ধি ধরেন। তো যাইহোক তিনি টুইট করেননি, তাঁর বলা কথা টুইট করা হয়েছে, সাক্ষাৎকার ছাপা হয়েছে,করেছেন,না বাবা ছেলের সম্পর্ক নিয়ে নয়, অস্কার নমিনেশন নিয়ে তিনি মুখ খুলেছেন। বলেছেন, দ্য কাশ্মীর ফাইলস অস্কারে নমিনেশনে শর্টলিস্টেড হয়েছে, এটা একটা বিরাট ব্যাপার। এটাই সব সমালোচনার জবাব। যে জুরি এইছবি কে ভালগার আর প্রোপাগান্ডা বলেছিলেন, আজ তিনি জবাব পেয়ে গেছেন। ছবিটা মানুষের ভাল লেগেছে। তিনি কোন জুরির কথা বললেন? একটু মনে করিয়ে দিই। নাদাভ লাপিড ছিলেন ইফির ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে জ্যুরি বোর্ডের চেয়ারম্যান। তিনি মঞ্চে দাঁড়িয়ে দ্য কাশ্মীর ফাইলস নিয়ে মুখ খুললেন। কাশ্মিরী পন্ডিতদের পলায়ন নিয়ে একটা কথাও বলেছেন? না, বরং বলেছেন, আমি গ্রাউন্ড পলিটিক্স, জমিনি হকিকত জানিনা, জানতেও চাই না, জেনে ওঠা সম্ভবও নয়। আমি যা বলেছি তা এই ছবির কাঠামো, এই ছবি যে ভাবে তৈরি হয়েছে, ছবি দেখে যা মনে হচ্ছে, সেটা হল এটা একটা ভালগার ছবি একটা প্রোপাগান্ডা ছবি। উনি বলার পরে জ্যুরি সদস্যদের মধ্যে বিদেশি আরও তিনজন, জিনকো গোতো, ফরাসী চলচিত্রকার পাস্কল সাভাঞ্জ, ফরাসী তথ্যচিত্র পরিচালক জ্যাভিয়ের অ্যাঙ্গুলো বার্তোঁ নাদাভ লাপিড এর বক্তব্যকে সমর্থন করেছেন। আমাদের দেশের থেকে জ্যুরি ছিলেন সুদীপ্ত সেন, ইনি কদিন আগেই বিতর্কিত হয়ে উঠেছেন, ওনার এক তথ্যচিত্রের জন্য, সেখানে তিনি বলেছেন, কেরালা থেকে নাকি ৩২ হাজার হিন্দু মহিলা আইসিস বা অন্য ইসলামিক টেররিস্টদের খপ্পরে পড়েছে। তো ইনি স্বাভাবিকভাবেই এবারের জ্যুরি বোর্ডে ছিলেন, তিনি বলেছেন, কাশ্মীর ফাইলস নিয়ে নাদাভ লাপিড যা বলেছেন, তা একান্তভাবেই তাঁর, মানে লাপিডের নিজের বক্তব্য। সুদীপ্ত সেন এই কথা বলার পরেই অন্য তিনজন বিদেশী জ্যুরি নাদাভ লাপিডের বক্তব্যকে সমর্থন করে বললেন, ছবিটি ভালগার এবং নিকৃষ্ট মানের প্রোপাগান্ডা। এই কাশ্মীর ফাইলস ছবিতেই, একটা ডায়ালগ আছে, মিথ্যে বলার থেকেও বড় অপরাধ হল, সত্যিটাকে না বলা।কাশ্মীর ফাইলস গোটা ছবিতেই সেটাই হয়েছে, কিছু সত্যি কথাতো বলা হয়েছে, কিন্তু তার চেয়েও বড় কথা হল, বহু সত্যি কথা চেপে গেছেন পরিচালক। তো সেই তিনি,বিবেক অগ্নীহোত্রী একই টুইট করেছেন, তিনি লিখেছেন বিগ অ্যানাউন্সমেন্ট, ভারতবর্ষ থেকে ৫টা ছবির মধ্যে আমাদের ছবি দ্য কাশ্মীর ফাইলস ও শর্টলিস্টেড হয়েছে। অ্যা গ্রেট ইয়ার ফর ইন্ডিয়ান সিনেমা। এর পরের টুইটে তিনি জানিয়েছেন দর্শন কুমার নাকি শর্টলিস্টেড হয়েছেন বেস্ট অ্যাক্টর। অ্যাক্ট্রেসের জন্য।পল্লবী যোশী, অনুপম খের, মিঠুন চক্রবর্তী এবং বিজেপি নেতা এবং অভিনেতা অনুপম খের আরও এক ধাপ এগিয়ে ছবিটি বেস্ট ফিল্ম এবং অভিনেতারা বেস্ট অ্যাক্টর / অ্যাক্ট্রেস ক্যাটাগরিতে শর্টলিস্টেড হয়েছে বলে জানালেন। ছবির আরেক জন অভিনেতা দর্শন কুমার ও টুইট করে এই খবর জানালেন এবং অস্কার আকাদেমিকে ধন্যবাদও দিলেন। এরপর শুরু হল হুক্কাহুয়া, রিপাবলিক টিভি থেকে ইন্ডিয়া টুডে, টাইমস নাও টিভিতে কী কলরব। অস্কার, অস্কার, এতদিন পরে আবার অস্কার। আমার পরিচিত এক চলচিত্র পরিচালক বললেন, অস্কার এ এমনি তেই যেসব সময় খুব ভালো ছবিই নির্বাচিত হয় তেমন তো নয়, কিন্তু তা বলে এই রদ্দি প্রোপাগান্ডা ফিল্ম অস্কার পাবে? একটু চেক করে দেখা যাক। চেক করে যা জানলাম তার সার মর্ম হল ১০০% ঢপ বাজিতে সামিল এই অভিনেতারা, রিপাবলিক থেকে টাইমস নাও, ইন্ডিয়া টুডের মত টিভি চ্যানেল। আসুন মিথ্যের পেঁয়াজের খোলসটা ছাড়ানো যাক। অস্কার মানে আকাদেমি আওয়ার্ডে নমিনেশন কী ভাবে হয়। এক হল বিভিন্ন দেশথেকে বিভিন্ন ভাষার ছবি, যা সেই দেশের আকাদেমি কমিটি বেছে পাঠান। আপনি যা খুশি ছবি করতে পারেন, যা খুশি, যে কোনও ভাষায়, বাংলাতেও। তারপর হাজার ১০ টাকা খরচ করে ফর্ম ফিলাপ করে পাঠাতে পারেন, বলতেই পারেন ছবি অস্কারে যাচ্ছে, আমরা চূর্ণী গাঙ্গুলির ছবি নির্বাসিতকে এই ভাবেই অস্কারে যেতে দেখেছিলাম। যদিও সেটা অসম্ভব ভালোই ছবি ছিল। তো যাই হোক এটা একটা পদ্ধতি, এর সঙ্গে অস্কারে শর্টলিস্টেড হওয়ার কোনও সম্পর্ক নেই। এরপরের বিষয়টা হল অস্কার ওয়েবসাইট এ ৯৫তম অস্কার শর্টলিস্ট এর তালিকা। ২১এ ডিসেম্বার ১০টা ক্যাটাগরির এক শর্টলিস্টতালিকা অস্কার কমিটি বা আকাদেমি প্রকাশ করেছে। 
ডকুমেন্টারি ফিচার ফিল্ম, ডকুমেন্টারি শর্ট ফিল্ম, ইন্টার ন্যাশনাল ফিচার ফিল্ম, মেকআপ অ্যান্ড হেয়ারস্টাইলিং, মিউজিক (অরিজিনাল স্কোর) মিউজিক (অরিজিনাল সং) অ্যানিমেটেড শর্টফিল্ম লাইভ অ্যাকশন শর্টফিল্ম
সাউন্ড ভিজুয়াল এফেক্টস
এর মধ্যে প্রথম সাতটার জন্য ১৫ টা করে এন্ট্রি আর শেষ সাতটা বিভাগের জন্য ১০টা করে ফিল্মের শর্টলিস্ট প্রকাশিত হয়েছে। এছাড়া আর অন্য কোনও শর্টলিস্ট প্রকাশিত হয়নি। আর এই শর্টলিস্ট এ দ্য কাশ্মীর ফাইলস এর নাম কোথাও নেই। আর বেস্ট অ্যাক্টর/অ্যাক্ট্রেস বা বেস্ট মুভি ইত্যাদির কোনও শর্টলিস্ট প্রকাশিত হয়নি। তাহলে এই ছবির নাম আছে কোথায়? অস্কার বা আকাদেমি ওয়েবসাইটে একটা রিমাইন্ডারলিস্ট আছে, তাতে কাদের নাম থাকে? বা সেখানে আসার যোগ্যতা কী? লস আঞ্জেলেস কাউন্টি, সিটি অফ নিউইয়র্ক, বেএরিয়া, শিকাগো, ইলিওনিস, মিয়ামি, ফ্লোরিডা, অ্যাটল্যান্টা আর জর্জিয়ার সিনেমা হলে অন্তত একটা জায়গায় পয়লা জানুয়ারি ২০২২ থেকে ৩১ ডিসেম্বর ২০২২ পর্যন্ত কমার্সিয়ালি রিলিজ করতে হবে। অন্তত সাতদিন এক নাগাড়ে সেই ছবি চলতে হবে। ফিচার ফিল্ম হলে তার দৈর্ঘ ৪০ মিনিটের বেশী হতে হবে। বেস্ট ফিচার ফিল্ম এর নমিনেশন পাবার জন্য তাকে আকাদেমির নিয়ম মেনে আবেদন করতে হবে। আমাদের দেশ থেকে গঙ্গুবাই কাথিয়াবাড়, দ্য কাশ্মীর ফাইলস ইত্যাদি ৫টা ছবিও সেই আবেদন করেছিল, আমাদের দেশের কমিটি সেই ছবিগুলোকে পাঠিয়েছে, বিভিন্ন দেশ থেকে ৩০১ জনের এক রিমাইন্ডারলিস্ট এ আছে দ্য কাশ্মীর ফাইলস। সরকার চাইলে ঐ পিএম নরেন্দ্রমোদী বলে যে ফিল্ম তৈরি হয়েছিল, বিবেক ওবেরয় যে ছবিতে নরেন্দ্রমোদী হয়েছিলেন, সেই ছবিকেও অস্কারে পাঠাতে পারত। দ্য কাশ্মীর ফাইলস ও গেছে। কোনও শর্টলিস্ট ইত্যাদি হয়নি আর বেস্ট অ্যাক্টর/ অ্যাক্ট্রেস, বেস্ট ফিল্ম ইত্যাদির নাম কোন তালিকাতেই নেই। ওটা পুরস্কারের কদিন আগে জানা যাবে। তা হলে কি অস্কারে আমাদের জন্য কোনও খবর নেই? আছেতো, মজার কথা হল ঐ চিল্লানে রিপাবলিক বা ইন্ডিয়া টুডে বা অন্য গোদি মিডিয়া সেই সত্যি খবরটা দেয়নি। সেটা হল, গুজরাটি ফিল্ম চেহেলো শো, দ্য লাস্ট শো, ইন্টারন্যাশন্যাল ফিল্ম ক্যাটাগরিতে শর্টলিস্টেড হয়েছে,সময় নামে একটা ন'বছর এর ছেলে সৌরাষ্ট্রের চাহলা গ্রামে সিনেমা প্রোজেকশন রুমে অসেবসে অসংখ্য ছবি দ্যাখে আর তার জন্য তাকে প্রজেকশনিস্ট ফজলকে ঘুসও দিতেহয়। সময়ের জীবনে আছে কেবল সিনেমা, এই সিনেমা দেখতে দেখতেই সময় একজন পরিচালক হয়ে উঠতে চায়, কিন্তু হেরে যায়, এক স্বপ্নভঙ্গের সিনেমা জায়গা পেয়েছে অস্কারে, মিডিয়ার কোথাও দেখেছেন? রাজামৌলির আরআরআর ছবির নাটু নাটু অস্কারেবেস্ট অরিজিনাল সং হিসেবে শর্টলিস্টেড হয়েছে। অল দ্যাট ব্রিদস ভারতীয় ডকুমেন্টারি ফিচার ফিল্ম আর দ্যএলিফ্যান্ট হু ইস্পারারস ডকুমেন্টারি শর্টফিল্ম এ শর্টলিস্টেড হয়েছে। এগুলোই তো খবর, এগুলোই তো সত্যি। দ্য কাশ্মীর ফাইলস অস্কারের কোনও পর্যায়ের জন্য, কোনও পুরস্কারের জন্য শর্টলিস্টেড হয়নি। বাংলার গোখরো মিথ্যে বলছে, ঢপ দিচ্ছে। 

Tags : Fourth Pillar

0     0
Please login to post your views on this article.LoginRegister as a New User

শেয়ার করুন


© R.P. Techvision India Pvt Ltd, All rights reserved.