৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, শুক্রবার,
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
K T V Clock
অনেক বেশি দায়িত্ব নিতে হবে অনুষ্ঠানের সঞ্চালককে
TV Channel Hate Speech: ঘৃণা ভাষণ নিয়ন্ত্রণে দায়িত্ব নিক সঞ্চালক, মত সুপ্রিম কোর্টের
কলকাতা টিভি ওয়েব ডেস্ক
কলকাতা টিভি ওয়েব ডেস্ক Edited By:  সাক্ষর সেনগুপ্ত
  • আপডেট সময় : ২১-০৯-২০২২, ৭:৫৭ অপরাহ্ন
TV Channel Hate Speech: ঘৃণা ভাষণ নিয়ন্ত্রণে দায়িত্ব নিক সঞ্চালক, মত সুপ্রিম কোর্টের
সুপ্রিম কোর্ট

টিভি চ্যানেলে সম্প্রচারিত বিতর্কসভায় ঘৃণা-ভাষণ দেওয়ার ক্ষেত্রে এবার অনেক বেশি দায়িত্ব নিতে হবে অনুষ্ঠানের সঞ্চালককে। সরকার এই সব বিষয়ে নীরব দর্শক হয়ে আছে কেন একইসঙ্গে সে প্রশ্নও উঠছে। মামলার পর্যবেক্ষণে এবার সে প্রশ্ন তুলল দেশের শীর্ষ আদালত। 

বুধবার সুপ্রিম কোর্টের ওই পর্যবেক্ষণে জানান হয়েছে, মূলধারার সংবাদ মাধ্যম আর সোস্যাল মিডিয়ায় এই ঘৃণা ভাষণ এখন নিয়ন্ত্রণের অসাধ্য হয়ে উঠেছে। সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতা খুব গুরুত্বপূর্ণ। ঘৃণা ভাষণ সংক্রান্ত বিষয়ে গত বছরেই দায়ের হওয়া বেশ কয়েকটি আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি কে এম জোসেফ বুধবার বলেন, আমাদের মুক্তচিন্তার ধরণ কখনই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মত নয়। আবার একইসঙ্গে মনে রাখতে হবে আমাদের কোথাও একটা লক্ষণরেখা টানতে হবে। 

কিন্তু কুকথা সত্ত্বেও এই ধরণের ঘৃণা ভাষণ কেন ভাইরাল হয়ে যায় তারও ব্যাখ্যা দিয়েছেন বিচারপতি। নিজের পর্যবেক্ষণে তিনি জানিয়েছেন, আসলে এই ঘৃণা ভাষণের একটি বৈশিষ্ট্য হল এর অনেকগুলি স্তর থাকে। খানিকটা আস্তে আস্তে মানুষকে খুন করার মত। একইসঙ্গে আদালতের বক্তব্য, এই ধরণের সমস্যা মেটানোর জন্য আদালতকে যদি কোনও পদক্ষেপ করতে হয় তাহলে কেন্দ্রীয় সরকারের উচিত ওই উদ্যোগকে সহায়তা করা।    

ওই মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ২৩ নভেম্বর। সুপ্রিম কোর্ট তার মধ্যে কেন্দ্রের কাছে জানতে চায় ঘৃণা ভাষণের এই সমস্যা নিয়ে আইন কমিশনের তরফে যে সুপারিশগুলি করা হয়েছিল তা গ্রহণ করার ব্যাপারে আদপে তাদের সম্মতি আছে কি না। এর আগে শীর্ষ আদালতের উদ্যোগে আইন কমিশনের তরফে ঘৃণা ভাষণের বিষয়ে একটি রিপোর্ট তৈরি করা হযেছিল। সেই রিপোর্টে জানান হয়, ভারতীয় দণ্ডবিধিতে ঘৃণা ভাষণকে বন্ধ করার মত কোনও আইন নেই। ২০১৭ সালে আইন কমিশনের সেই রিপোর্ট পেশের পর পাঁচ বছর কেটে গিয়েছে। কিন্তু কোনও নির্দিষ্ট পদক্ষেপ হয়নি। আপাতত নতুন কোনও আইন তৈরি বা আইন সংশোধনের মাধ্যমে সমস্যা মেটানো যায় কি না সেদিকেই আপাতত মূল আগ্রহ ভুক্তভোগীদের।

Tags : Supreme Court TV Anchor TV Channel Hate Speech

0     0
Please login to post your views on this article.LoginRegister as a New User

শেয়ার করুন


© R.P. Techvision India Pvt Ltd, All rights reserved.