০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, বুধবার,
1
2
3
4
5
6
7
8
9
10
11
12
K T V Clock
Nagarik Michil: বুধবার নাগরিক মিছিলে না পুলিশের, মহামিছিল হবেই, জানিয়ে দিল আইএসএফ
কলকাতা টিভি ওয়েব ডেস্ক
কলকাতা টিভি ওয়েব ডেস্ক Published By:  দেবাশিস দাশগুপ্ত
  • আপডেট সময় : ২৪-০১-২০২৩, ৮:৫৪ অপরাহ্ন

কলকাতা: আগামিকাল বুধবার আইএসএফকে (ISF) মিছিল করতে দেবে না পুলিশ। এই মর্মে জানিয়ে দিল কলকাতা পুলিশ (Kolkata Police)। সমস্ত রাজনৈতিক দলের কাছে বুধবার কোনও মিছিল না করার আবেদন করল লালবাজার।(Lalbazar ) কারণ হিসেবে লালবাজার বলছে, পরের দিন প্রজাতন্ত্র দিবস (Republic Day) এবং সরস্বতী পুজো (Saraswati Puja)। বুধবার অনেক ঠাকুর যাবে প্যান্ডেলে। তা ছাড়া প্রজাতন্ত্র দিবসের শেষ পর্যায়ের প্রস্তুতি রয়েছে। তাই শহরে আইনশৃঙ্খলা (Law and Order) বজায় রাখার জন্যই বুধবার মিছিল না করার আবেদন জানানো হয়েছে। 

আইএসএফ অবশ্য মিছিল করার ব্যাপারে অনড়। তারা বলছে, মিছিল হবেই। আর এটা কোনও রাজনৈতিক দলের মিছিল নয়। নাগরিক মিছিল। তাতে কোনও পতাকাও থাকবে না। তবু আইএসএফ নেতারা মঙ্গলবার বিকেলে লালবাজারের নিষেধাজ্ঞা নিয়ে আলোচনার জন্য জরুরি বৈঠকে বসে।

আরও পড়ুন: Anubrata Mandal: কেষ্টর জামিন খারিজ দিল্লির রাউস অ্যাভিনিউ কোর্টে 

এদিকে পুলিশ বুধবার তৃণমূলকেও ভাঙড়ে মিছিল করার অনুমতি দেয়নি। শাসকদল আগামিকাল ভাঙড়ের পাকাপোল থেকে হাতিশালা পর্যন্ত প্রতিবাদ মিছিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। মিছিলের পরে হাতিশালায় সভা করারও কথা ছিল। তৃণমূল পার্টি অফিসে ভাঙচুর, আগুন ধরানো এবং দলীয় কর্মীদের মারধরের প্রতিবাদে ওই মিছিলের আয়োজন করা হয়েছিল। কিন্তু পুলিশ মঙ্গলবার জানিয়ে দিল, ২৬ জানুয়ারি পর্যন্ত হাতিশালা এলাকায় কোনও সভা, সমিতি, মিছিল, জমায়েত করা যাবে না। 

গত শনিবার ধর্মতলায় আইএসএফের অবরোধ তুলতে গেলে সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের তুমুল সংঘর্ষ হয়। পুলিশকে লক্ষ্য করে ব্যাপক ইট, পাথর ছোড়া হয়। লাঠি, রড নিয়েও পুলিশকে আক্রমণ করা হয়। পাল্টা পুলিশও লাঠি, কাঁদানে গ্যাস, জলকামান চালায়। আইএসএফের হামলায় দুই পুলিশ অফিসার-সহ ১৯ জন পুলিশকর্মী জখম হন। ওই দুই পুলিশ অফিসার এখনও হাসপাতালে ভর্তি। আইএসএফেরও বেশ কয়েকজন সমর্থক জখম হন। আইএসএফ বিধায়ক নওশাদ সিদ্দিকী-সহ বহু সমর্থককে গ্রেফতার করে পুলিশ। নওশাদ এখন পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন। তাঁর মুক্তির দাবিতেই বুধবার নাগরিক মিছিলের ডাক দিয়েছে আইএসএফ। 

এদিকে নওশাদকে টেনে হিঁচড়ে লালবাজারে ঢোকানোর তীব্র নিন্দা করেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। তিনি বলেন, আইএসএফের সঙ্গে বিজেপির মতাদর্শগত বিরোধ রয়েছে। নওশাদ একজন বিধায়ক এবং বিশেষ একটি পরিবারের সম্মানীয় ছেলে। তাঁকে যেভাবে হেনস্তা করা হয়েছে, তার প্রতিবাদ করছি। তিনি বলেন, এই সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোকেরা তৃণমূলকে জিতিয়েছে। এখন তাদের উপরই শাসকদলের পুলিশ হামলা করছে। সংখ্যালঘু ভাইয়েরা তৃণমূলকে ভোট দেওয়ার প্রতিদান পাচ্ছেন।

Tags : Nagarik Michil ISF Kolkata Police Law and Order নাগরিক মিছিল আইএসএফ কলকাতা পুলিশ আইনশৃঙ্খলা

0     0
Please login to post your views on this article.LoginRegister as a New User

শেয়ার করুন


© R.P. Techvision India Pvt Ltd, All rights reserved.