Placeholder canvas
HomeScrollপাকিস্তানে বেশি আসন পেলেন জেলে থাকা ইমরানের খানের সমর্থকরা
Imran Khan Leads in Pakistan Vote

পাকিস্তানে বেশি আসন পেলেন জেলে থাকা ইমরানের খানের সমর্থকরা

অনিশ্চয়তার দোলাচলে পাকিস্তানে সরকার গঠন

Follow Us :

লাহোর: কারাগারের অন্তরাল থেকে শেষ হাসি কি হাসবেন পাকিস্তানের (Pakistan) প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী লড়াকু মেজাজের ইমরান খান? পাকিস্তানের সাধারণ নির্বাচনে (General Election) তিনি অংশ নিতে পারেননি। তাঁর দল পিটিআইও নির্বাচনে লড়ার অনুমতি পায়নি। তা সত্ত্বেও তাঁর গড়া রাজনৈতিক দল পিটিআই সমর্থিত নির্দল প্রার্থীরা সব থেকে বেশি ১০১ আসনে জয়লাভ করেছে। ম্যাজিক ফিগার ছুঁতে না পারলেও তারাই এগিয়ে। এদিকে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের দল পিএমএলএন পেয়েছে ৭৩টি আসনে। তাঁরা সরকার গঠনের জন্য জোট করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে। ফলে পাকিস্তানে এখন রাজনৈতিক দর কষাকষি শুরু হয়েছে। সাংসদ কিনতে ঘোড়া কেনাবেচার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

পাকিস্তান অর্থনৈতিক সঙ্কট থেকে পুনরুদ্ধারের জন্য লড়াই করছে। নির্বাচনের একটি ঝুলন্ত রায় এবার ছুঁড়ে দিলে আরেকটি ধাক্কা। রাজনৈতিক দলগুলি সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের জন্য নেতাদের একত্রিত করার চেষ্টা করার কারণে দেশ এখন রাজনৈতিক ঘোড়া কেনাবেচার মুখোমুখি। ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ইনসাফ (পিটিআই) সমর্থনকারী নির্দল হিসাবে সর্বাধিক আসনে জিতেছে। কিন্তু দলটি এখনও সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যাগরিষ্ঠতার সংখ্যা থেকে ৩২ আসন কম পেয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ভোট শেষ হওয়ার প্রায় ৬০ ঘণ্টা পর চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করা হয়। পাকিস্তান নির্বাচন কমিশন দেরি হওয়ার জন্য ইন্টারনেট সমস্যাকে দায়ী করেছে।

আরও পড়ুন: রাজ্যসভা নির্বাচনে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা তৃণমূলের

নওয়াজ শরিফের পাকিস্তান মুসলিম লিগ সেনাবাহিনীর সমর্থিত এবং নির্বাচনে ২৬৬ আসনের সংসদে মাত্র ৭৩টি আসন পেয়েছে। বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারির পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) জিতেছে ৫৪টি আসনে। ইমরান খান এবং তিনবারের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ উভয়েই বিজয় ঘোষণা করেছেন। এমন একটি সময়ে কে পরবর্তী সরকার গঠন করবে তা নিয়ে অনিশ্চয়তা বাড়ছে।

নির্দলদের শক্তিশালী পারফরম্যান্স দেশের ২৫ কোটি মানুষের মধ্যে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের স্থায়ী জনপ্রিয়তাকে বোঝায়। ইতিমধ্যে পিটিআই দ্বারা সমর্থিত বেশ কয়েকটি নির্দল নির্বাচনের ফলাফলে জালিয়াতির অভিযোগ করে উচ্চ আদালতে আবেদন করেছে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুসারে, ভোটে কারচুপির অভিযোগে আরও বেশ কয়েকজন প্রার্থী আগামী কয়েক দিনের মধ্যে আদালতের দ্বারস্থ হতে পারেন। ফলাফল ঘোষণায় দেরির জন্য পিটিআই আজ দেশব্যাপী বিক্ষোভ শুরু করেছে। পিটিআই চেয়ারম্যান গহর খান পাকিস্তানের সমস্ত প্রতিষ্ঠানকে তাঁর দলের রায়কে সম্মান করার আহ্বান জানিয়েছেন। ইমরান খানের দলকে দেশের শীর্ষ কার্যালয় থেকে দূরে রাখার জন্য নওয়াজ শরিফ এবং বিলাওয়াল ভুট্টো হাত মেলাতে আলোচনা করছেন। কিন্তু সম্মিলিত শক্তিতেও তারা সংখ্যাগরিষ্ঠতা থেকে কমবে ৬টি আসনে।

আরও খবর দেখুন 

RELATED ARTICLES

Most Popular

Recent Comments