Placeholder canvas

Placeholder canvas
HomeScrollএকশো দিনের টাকার দাবিতে তৃণমূলের অবস্থান বিধানসভায়

একশো দিনের টাকার দাবিতে তৃণমূলের অবস্থান বিধানসভায়

আসল বঞ্চিতরা আসবেন কাল শাহের সভায়, পাল্টা দাবি শুভেন্দুর

Follow Us :

কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশমতো তৃণমূল বিধায়কদের অবস্থান কর্মসূচি শুরু হল। মঙ্গলবার বেলা তিনটের সময় শাসকদলের তাবড় নেতা-মন্ত্রীরা বিধানসভার (West Bengal Legislative Assembly) লনে বি আর আম্বেদকরের মূর্তির (Dr BR Ambedkar Statue) পাদদেশে অবস্থানে বসেন। তা চলে টানা দুই ঘণ্টা। আগামিকাল এবং পরশুও এই অবস্থান চলবে। অবস্থানকারী বিধায়ক এবং মন্ত্রীদের কারও হাতে, কারও গলায় ছিল নানা স্লোগান লেখা প্ল্যাকার্ড। তার কোনওটায় লেখা, একশো দিনের টাকা বাকি কেন, কেন্দ্রীয় সরকার জবাব দাও। কোনওটায় লেখা, রাজ্যের প্রতি কেন্দ্রের বঞ্চনা মানছি না, মানব না।

বিজেপি অবশ্য শাসকদলের এই কর্মসূচিকে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি। বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেন, নিজেদের বিধানসভায় কালো পোশাক পরে শাসকদল বিক্ষোভ দেখাচ্ছে। কখনও দেখেছেন, নিজেদের রাজ্যে কোনও শাসকদল প্রতিবাদ করে? সব ফটো সেশন। শুভেন্দু বলেন, রাজ্যের প্রতি কেন্দ্র্রের বঞ্চনার প্রতিবাদে নাকি এই নাটক। আসল বঞ্চিতরা তো আগামিকাল ধর্মতলায় আসবেন। তাঁরা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের (Amit Shah) সঙ্গে দেখা করবেন। তাঁর অভিযোগ, একশো দিনের কাজেও ব্যাপক চুরি হয়েছে। হিসেব দিতে পারেনি রাজ্য সরকার। তাই দুর্নীতির কারণে টাকা আটকে গিয়েছে। তৃণমূলের এমএলএ, গুন্ডারা সমস্ত দুর্নীতিতে যুক্ত।

আরও পড়ুন: উত্তরকাশীর পথে রওনা বঙ্গের দল, টুইট মমতার

একশো দিনের কাজ, আবাস যোজনা, সড়ক যোজনায় রাজ্যের প্রাপ্য টাকা কেন্দ্র দীর্ঘদিন ধরে আটকে রেখেছে। তার বিরুদ্ধে তৃণমূল আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। বকেয়া মেটানোর দাবিতে শাসকদলের মন্ত্রী, বিধায়ক, সাংসদরা দিল্লিতে ধরনা দেন অক্টোবর মাসের শুরুতে। তাঁরা কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু মন্ত্রী তাঁদের সঙ্গে দেখা করেননি। তৃণমূলের অভিযোগ ছিল, মন্ত্রী পিছনের দরজা দিয়ে পালিয়ে গিয়েছেন। দিল্লিতেই তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেন, এবার আন্দোলন হবে কলকাতায় রাজভবনের সামনে। দিল্লিতেই তিনি আরও জানিয়েছিলেন, যে সব বঞ্চিত মানুষ দিল্লির ধরনায় শামিল হয়েছেন, তাঁদের বকেয়া টাকা তিনি মিটিয়ে দেবেন। গত শনিবার থেকে অভিষেক সেই টাকা মিটিয়ে দিচ্ছেন। সঙ্গে তিনি আরও বড় আন্দোলনের জন্য প্রস্তুত থাকার বার্তা দিয়ে চিঠিও পাঠাচ্ছেন বঞ্চিতদের। যদিও সাংসদ এত টাকা কোথা থেকে পাচ্ছেন, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিরোধীরা।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন পায়ের ব্যথার জন্য বাড়িতে ছিলেন, তখন অভিষেকরা রাজভবনের সামনে ধরনা দেন। তাঁরা রাজ্যপালকে স্মারকলিপি দেন। রাজ্যপাল রাজ্যের দাবি কেন্দ্রকে জানানোয় অভিষেক তাঁকে কৃতজ্ঞতাও জানান।

গত ২৩ নভেম্বর নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে দলীয় সভায় মমতা একশো দিনের বকেয়া টাকার দাবিতে কিছু কর্মসূচি ঘোষণা করেন। তাঁর নির্দেশ ছিল, ২৮ থেকে ৩০ নভেম্বর বেলা তিনটে থেকে দুই ঘণ্টা বিধানসভায় বিধায়ক, মন্ত্রীরা ধরনায় বসবেন। ২ এবং ৩ ডিসেম্বর রাজ্যের সমস্ত বুথে মিছিল, মিটিং করতে হবে। নেত্রীর নির্দেশমতোই এদিন বিধায়ক, মন্ত্রীরা বিধানসভায় আম্বেদকরের মূর্তির পাদদেশে অবস্থান করেন। আগামী দুদিনও এই অবস্থান চলবে।

আরও অন্য খবর দেখুন

RELATED ARTICLES

Most Popular

Recent Comments