Placeholder canvas
HomeBig newsলোকসভার রণভেরি বাজালেন মমতা, মোদি-বিরোধী শঙ্খনাদ

লোকসভার রণভেরি বাজালেন মমতা, মোদি-বিরোধী শঙ্খনাদ

Follow Us :

কলকাতা: আগামী লোকসভা ভোটে (Lok Sabha Elections 2024) নরেন্দ্র মোদির (PM Narendra Modi) বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সুর বেঁধে দিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (CM Mamata Banerjee)। বৃহস্পতিবার নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে দলের বিশেষ অধিবেশনে নেতা-কর্মীদের সামনে কার্পেট ফায়ারের মতো মোদিকে নিশানা করেন মমতা। বাংলার প্রতি বঞ্চনা, প্রতিরক্ষা দুর্নীতি, ভোট হিংসা, জাতীয় অর্থনীতির দুরবস্থা সহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মোদিকে আক্রমণ করেন। মোদি এবং অমিত শাহকে নিশানা করে বলেন, যে দুজন এই দেশের সবথেকে বড় ক্ষতি করেছে তাদের সমর্থন করবেন না।

মমতা এদিন বুঝিয়ে দেন, কেন্দ্রে বিজেপি সরকারের মেয়াদ আর তিন মাস। তারপরেই নির্বাচন ঘোষণা হয়ে যাবে। কথায় কথায় মুখ্যমন্ত্রী ১০০ দিনের কাজের টাকা, আবাস যোজনা সহ অন্যান্য উন্নয়নমূলক কাজে কেন্দ্রীয় বৈষম্যের কথা উল্লেখ করেন। রাজ্যের শিল্পোন্নয়নের বিষয়ে বলেন, বিজিবিএসের মাধ্যমে আমরা এ পর্যন্ত ১৫ লক্ষ কোটি টাকা আনতে পেরেছি। যার মধ্যে ১০ লক্ষ কোটি টাকার কাজ হয়েছে। আর কিছু নিন্দুক রয়েছে, তারা খালি বলে এখানে কিছু হয় না।

আরও পড়ুন: ইস্পাতের বাধা দূর, মুক্তির দরজায় দাঁড়িয়ে অভিযান

ইন্ডিয়া জোটের (INDIA Alliance) শরিক দল সিপিএমকেও (CPM) আক্রমণ করতে ছাড়েননি মমতা। সিপিএমের আমলের শিল্প ও বিনিয়োগের সঙ্গে বর্তমানের তুলনা টানেন মুখ্যমন্ত্রী। আইটি, চর্মশিল্পে, দেউচা পাচামি নিয়ে জোট শরিককে বেঁধেন তিনি। পুরনো ভঙ্গিতে সিপিএমকে লক্ষ্য করে বলেন, ওরাই সবথেকে দুর্নীতি করে। জনগণের পকেট কেটে নিজেদের গলায় লকেট পরছে। রাজ্য সরকার পাঁচটি ফ্রেট করিডর তৈরি করছে বলে দাবি করেন। জয়নগরে খুনের জন্যও সিপিএমকে দায়ী করে বলেন, যারা নরকঙ্কাল নিয়ে খেলা করত, ধোপা-নাপিত বন্ধ করে দিত, তাদের মুখে বড় বড় কথা!

উৎসব পর্ব মিটে গেলেই লোকসভা ভোটের আগে পর্যন্ত জেলা সফরের ইঙ্গিতও এদিন দিয়ে দেন মমতা। বলেন, লক্ষ্মী ভাণ্ডার ও আবাস যোজনার মতো অনেক আবেদন তৈরি হয়ে আছে। আমি গিয়ে সেগুলো তাঁদের হাতে তুলে দিয়ে আসব। অর্থাৎ দলনেত্রী পরোক্ষে বুঝিয়ে দিলেন লোকসভা ভোটে তৃণমূলের ভোটপ্রচারে তিনিই এক এবং একমাত্র মুখ। বলেন, এতকিছু করার পরেও বিজেপি, সিপিএমের কাছে আমায় জ্ঞান নিতে হবে! বদলা নিতে হবে। বদলা মানে প্রত্যেক বুথে হারাতে হবে। চারিদিকে নজর রাখতে হবে।

দলের কর্মীদের সতর্ক দিয়ে বলেন, আমার যেন কানে না আসে কোনও তৃণমূল সদস্যের জন্য কোনও কোম্পানি বন্ধ হচ্ছে। যা হবে তার জন্য শিল্পমন্ত্রী মলয় ঘটকের সঙ্গে কথা বলতে হবে। কেউ ৫ টাকা নিলে প্রচার করছে ৫০০ টাকা নিয়েছে। সংখ্যালঘু ভাইবোনদের কাছে অনুরোধ করেন, কিছু লোক বিজেপির কাছ থেকে টাকা নিয়ে উসকানি দিচ্ছে। বিজেপির প্ররোচনায় পা না দেওয়ার আর্জি জানান মমতা।

অন্য খবর দেখুন

RELATED ARTICLES

Most Popular

Recent Comments