Placeholder canvas

Placeholder canvas
HomeScrollবইমেলায় বিজেপির পদ্মফুল বিলি নিয়ে ধুন্ধুমার

বইমেলায় বিজেপির পদ্মফুল বিলি নিয়ে ধুন্ধুমার

বইমেলা কোন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের জায়গা নয়, দাবি পুলিশের

Follow Us :

কলকাতা:অযোধ্যায় নিজের ঘরে ফিরেছেন শ্রীরামচন্দ্র। দেশ-বিদেশে স্বাভাবিকভাবেই উচ্ছ্বাসে ভাসছেন হিন্দু ধর্মালম্বীরা। তখনই কলকাতা বইমেলায় (Kolkata Book Fair) বিশৃঙ্খলা পরিস্থিতি। বিজেপি সমর্থক (BJP Supporter) ও বিধাননগর পুলিশের (Bidhannagar Police) মধ্যে বাচসা বাধে। বইমেলার ভিতরে বিজেপির পদ্মফুল বিতরণ ও গেঞ্জি উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে উত্তেনা ছড়াল। সোমবার বিকেলে রুদ্রনীল ঘোষের নেতৃত্বে বিজেপি সমর্থকরা বইমেলায় আসেন। সঙ্গে ছিল বেশ কিছু কচিকাঁচারাও। সেখানেই তাল কাটে। বইমেলা প্রাঙ্গণের ভিতরে পদ্মফুল বিতরণে আপত্তি জানায় পুলিশ। বাধা দেওয়াকে কেন্দ্র করে তুমুল বিশৃঙ্খলা ছড়ায়।

অযোধ্যায় রামলালার (Ayodhya Ram Lalla) প্রাণ প্রতিষ্ঠার পরেই, কলকাতার রাস্তায় খুদে রামলালারা। কলকাতা বই মেলা প্রাঙ্গণে তীর ধনুক হাতে একাধিক রামলালার দেখা মিলল। সঙ্গে ছিলেন বিজেপি নেতা রুদ্রনীল ঘোষ (BJP leader Rudranil Ghosh) ও সমর্থকরা। সাধারণ মানুষের হাতে পদ্মফুল তুলে দেওয়ার কর্মসূচী ছিল। পদ্মফুল বিলির কর্মসূচি মধ্যে জয় শ্রীরাম ধ্বনিও ওঠে। বিধাননগর পুলিশের উচ্চ পদস্থ অফিসাররা এসে পৌঁছায় ঘটনাস্থলে। রুদ্রনীল ঘোষ এবং অন্যান্য বিজেপি সমর্থকদের সঙ্গে বাক্য বিনিময় হয় তাদের। লিশের সঙ্গে কার্যত বচসায় জড়িয়ে পড়েন বিজেপি সমর্থকরা।

আরও পড়ুন: অযোধ্যায় রামমন্দির উদ্বোধনে রামে মোহিত মোদি

পুলিশের দাবি, বইমেলা কোনওরকম বিক্ষোভ-প্রদর্শনের জায়গা নয়। বইমেলা প্রাঙ্গণের ভেতরে কোন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড বা কোনও প্রহসন করার অনুমতি নেই। বইমেলার পরিবেশ যাতে নষ্ট না করা হয়, সেই কথা বলা হয়। অন্যদিকে রুদ্রনীল ও বিজেপি সমর্থকদের বক্তব্য, এখানে কোনও বিক্ষোভ প্রদর্শন চলছিল না। পদ্মফুল বিলি করা হচ্ছিল মাত্র। পুলিশ জোর করে বাধা দেয়।

আরও অন্য খবর দেখুন

RELATED ARTICLES

Most Popular

Recent Comments