Placeholder canvas

Placeholder canvas
HomeScrollতাপস রায় কি তৃণমূল ছাড়ার পথে, জল্পনা তুঙ্গে
Tapas Roy

তাপস রায় কি তৃণমূল ছাড়ার পথে, জল্পনা তুঙ্গে

তাপসকে ফোনের নাগালে পাওয়া যাচ্ছে না

Follow Us :

কলকাতা: দুয়ারে লোকসভা নির্বাচন (Lok Sabha Election 2024), তার আগেই বরাহনগরের প্রবীণ তৃণমূল বিধায়ক তথা। রাজ্য বিধানসভায় শাসকদলের উপ-মুখ্যসচেতক তাপস রায় (Tapas Roy) দল ছাড়ছেন বলে রবিবার চর্চা শুরু হয়েছে। শনিবারই তিনি কুণাল ঘোষের (Kunal Ghose) সুরে উত্তর কলকাতার তৃণমূল সাংসদ এবং লোকসভার দলনেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Sudip Bandyopadhyay) বিরুদ্ধে গুচ্ছের অভিযোগ করেন। রবিবার সকাল থেকে তাপসকে ফোনের নাগালে পাওয়া যাচ্ছে না বলে তাঁকে নিয়ে জল্পনা আরও বেড়েছে।

দিন দুয়েক আগেই দলের মুখপাত্র এবং রাজ্য সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন কুণাল ঘোষ। দল তাঁর মুখপাত্র পদে ইস্তফা গ্রহণ করলেও সাধারণ সম্পাদক পদে ইস্তফা গ্রহণ করেনি। তারপরেই শনিবার রাতে কুণাল তাঁর এক্স হ্যান্ডেলে লেখেন, দল আমার একটা অংশ গ্রহণ করেছে। আমি চাই, সাধারণ সম্পাদক পদে ইস্তফাও গ্রহণ করা হোক। আমি ওই পদে থাকব না। তাঁরও ক্ষোভ সুদীপের বিরুদ্ধেই। তার মধ্যেই দমদমের তিনবারের বিধায়ক প্রবীণ সৌগত রায় এবার টিকিট পাবেন কি না, তা নিয়ে নিজেই সংশয় প্রকাশ করেছেন। টিকিট পেলেও জিতবেন কি না, তাও বলেছেন তিনি এক সভায়। সব মিলিয়ে ভোটের মুখে তৃণমূল এসব নিয়ে অস্বস্তিতে রয়েছে।

আরও পড়ুন: রাজনীতির ময়দানে নামতে চলেছেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়

তাপসের অভিযোগ, গত ১২ জানুয়ারি সুদীপই তাঁর বাড়িতে ইডিকে পাঠিয়েছিলেন। বরাহনগরের বিধায়ক জানিয়েছেন, লোকসভা ভোটে উত্তর কলকাতা থেকে তাঁর নাম প্রার্থী হিসেবে উঠে আসছে। তাই সুদীপ তাঁর পিছনে লেগেছেন। দল তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলেও কিছু এসে যায় না বলে এই প্রবীণ বিধায়ক মন্তব্য করেন। সুদীপের বিরুদ্ধে বিজেপি ঘনিষ্ঠতার উল্লেখ করে তাপস বলেন, রাজ্যপাল হবেন বলে সুদীপ মোদিজিকে আঁকড়ে ধরতে চেয়েছিলেন। এমনটাই আমি শুনেছিলাম। সূত্রের দাবি, রবিবার তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের তরফে বারবার ফোন করা হয়েছে তাপস রায়কে। কিন্তু, তিনি ফোন তোলেননি। জানা গিয়েছে, একজন মন্ত্রীকে তাপস রায়ের বাড়িতে পাঠানো হয়। কী কথা হয়েছে তা জানা যায়নি। তৃণমূলের একের এক পর এক নেতা বেসুরে বাজতে থাকায় লোকসভা ভোটের আগে প্রশ্ন উঠছে দলের অন্দরের ফাটল কি আরও চওড়া হচ্ছে?

মূলত সুদীপের বিরুদ্ধে গুচ্ছ অভিযোগকে সামনে রেখেই উত্তর কলকাতার আর এক নেতা কুণাল ঘোষ শুক্রবার দলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক এবং মুখপাত্রের পদে ইস্তফা দেন। তবে তিনি দল ছাড়েননি। ইস্তফার কথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে জানিয়েও দিয়েছেন কুণাল। শনিবার নিজের এক্স হ্যান্ডেলে চিটফান্ড কাণ্ডে ফের সুদীপের গ্রেফতারির দাবি করেন। তিনি তা নিয়ে মামলা করবেন বলেও হুমকি দিয়েছেন।

অন্য খবর দেখুন

https://youtu.be/LZh6hy11p2o?si=wW8xIYf4TirgBb3U 

RELATED ARTICLES

Most Popular