Placeholder canvas

Placeholder canvas
HomeScrollপ্রশ্নের উত্তর না বলায় মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীকে মারধর
Madhyamik Examination 2024

প্রশ্নের উত্তর না বলায় মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীকে মারধর

পড়ুয়ারা পরীক্ষার সময়েও কী নিরাপদ নন? উঠছে প্রশ্ন

Follow Us :

ইছাপুর: জীবনের প্রথম বড় পরীক্ষা দিতে গিয়েই স্কুলের পড়ুয়াদের হাতে মার থেকে হবে তা হয়ত ভাবনাতেও আসবে না৷ এমন ঘটনার সাক্ষী থাকল ইছাপুর। প্রশ্নের উত্তর না বলায় মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীকে মারধরের অভিযোগ। পুলিশ সূত্রে জানা যাচ্ছে, আক্রান্ত মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর নাম শুভ বর্মন। গত শনিবার মাধ্যমিক পরীক্ষার (Madhyamik Examination 2024) দ্বিতীয় ভাষার পরীক্ষা দেওয়ার সময় ইছাপুর নর্থল্যান্ড স্কুলের (Ichapur Northland High School) ছাত্র গারুলিয়ার বাসিন্দা শুভ বর্মনের কাছে কিছু প্রশ্নের উত্তর জানতে চান দুই ছাত্র। কিন্তু শুভ বর্মন নামের মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী তাদেরকে প্রশ্নের উত্তর বলে দিতে অস্বীকার করলে দুই ছাত্র মাধ্যমিক পরীক্ষা শেষে বুঝে নেওয়ার হুমকি দেয় বলে অভিযোগ। প্রশ্নের উত্তর বলে দেয়নি, সেজন্য স্কুল চত্বরেই সহপাঠীদের হাতে মার খেতে হল মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীকে (Madhyamik Student)।

সোমবার মাধ্যমিকের ইতিহাস পরীক্ষা শেষে ইছাপুর বিভুকিঙ্কর স্কুল থেকে বাড়ি ফিরছিল শুভ। পরীক্ষা দিয়ে বেড়াতেই স্কুলের থেকে কিছুটা দূরে শুভকে গারুলিয়া মিল হাই স্কুলের বেশ কিছু মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ঘিরে ধরে এবং সাইকেল থেকে নামিয়ে বেধড়ক মারধর করে বলে অভিযোগ। আহত অবস্থায় ওই ছাত্রকে প্রথমে ব্যারাকপুর বি এন বসু মহকুমা হাসপাতাল এবং সেখান থেকে সাগর দত্ত মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নিয়ে যাওয়া হয়। সেখাল থেকে কলকাতার একটি সরকারি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় ওই ছাত্রকে। তার নাকের হাড় ভেঙে গিয়েছে এছাড়াও চোখে ও শরীরের বিভিন্ন জায়গাতে গুরুতর আঘাত লেগেছে।

আরও পড়ুন: সন্দেশখালি নিয়ে রাজ্যপালের হস্তক্ষেপ দাবি বিরোধী দলনেতার

ঘটনার ফলে মাধ্যমিক পরীক্ষা দুটি পরীক্ষা দিতে পারেননি শুভ বর্মন। ঘটনার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে নোয়াপাড়া থানায় শুভ বর্মনের পরিবারের পক্ষ থেকে। এলাকায় অত্যন্ত শান্ত এবং ভালো ছেলে হিসেবে পরিচিত শুভ বর্মনের উপর এমন ভাবে হামলার ঘটনায় শুভ বর্মনের প্রতিবেশীরাও বিষয়টিতে সরব হয়েছেন সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে আহত মাধ্যমিক। মাধ্যমিক চলাকালীন, তা নিয়ে তৈরি হয়েছে বিতর্ক৷ প্রশ্ন উঠেছে, পড়ুয়ারা পরীক্ষার সময়েও কী নিরাপদ নন?

শুধু ইছাপুর নয়, কলকাতাও একই ঘটনার সাক্ষী থেকেছে। গত মঙ্গলবার সেলিমপুরের একটি স্কুলে মাধ্যমিক পরীক্ষা চলাকালীন প্রশ্নের উত্তর না বলায় পরীক্ষার শেষে বালিগঞ্জের একটি ঐতিহ্যবাহী স্কুলের কয়েকজন পরীক্ষার্থীকে ঢাকুরিয়া একটি হাইস্কুলের বেশ কয়েকজন পরীক্ষার্থী মারধর করেছে বলে অভিযোগ। মার খাওয়া পরীক্ষার্থীদের অভিভাবকেরা জানান, মেরে মাথা পর্যন্ত ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে।

অন্য খবর দেখুন

RELATED ARTICLES

Most Popular

Recent Comments