Placeholder canvas

Placeholder canvas
HomeScrollশাহজাহান অন্যায় করেছেন, ২৩ দিন পর স্বীকারোক্তি ফিরহাদের

শাহজাহান অন্যায় করেছেন, ২৩ দিন পর স্বীকারোক্তি ফিরহাদের

সোমবার ইডি দফতরে হাজিরা দেওয়ার কথা সন্দেশখালির তৃণমূল নেতার

Follow Us :

কলকাতা: সন্দেশখালিতে শাহজাহান ৫ জানুয়ারি অন্যায় করেছেন বলে স্বীকার করলেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim ) (ববি)। শনিবার ববি বলেন, আ্মি টিভিতে দেখেছি, সেদিন ইডির আধিকারিকদের মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে। যা করেছে, তা অন্যায়। ববির এই বক্তব্য নিয়ে শাসকদলের অন্দরে নানা জল্পনা শুরু হয়েছে।

সন্দেশখালির সরবেড়িয়ায় তৃণমূলের জেলা পরিষদ সদস্য শেখ শাহজাহানের (Sheikh Shahjahan) বাড়িতে গত ৫ জানুয়ারি ইডির অভিযান ঘিরে ধুন্ধুমার ঘটে। শাহজাহানের হাজারখানেক অনুগামী ইডির অফিসার, কেন্দ্রীয় বাহিনী এবং সাংবাদিকদের উপর হামলা চালায়। ইডির তিন আধিকারিক গুরুতর চোট পেয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। তারপর থেকে এখনও বেপাত্তা শাহজাহান। গতকাল পর্যন্ত শাসকদলের কোনও নেতাই শাহজাহানের কোনও অন্যায় দেখেননি। দলের একাধিক নেতা, মন্ত্রী ওই ঘটনাকে জনরোষ বলে দাগিয়েছেন। কেউ বলেছেন, ইডি এবং কেন্দ্রীয় বাহিনীর প্ররোচনাতেই ওই ঘটনা ঘটেছে। কেউ আবার প্রশ্ন তোলেন, কেন ইডি রাজ্য সরকারকে জানিয়ে অভিযান চালায়নি। বিষয়টি তদন্তাধীন বলে খোদ পুলিশমন্ত্রী ওই ঘটনা নিয়ে মন্তব্য এড়িয়ে গিয়েছেন।

ববিই শাসকদলের প্রথম নেতা, যিনি এদিন শাহজাহান অন্যায় করেছেন বলে স্বীকার করলেন। পুরমন্ত্রী আবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ বৃত্তের নেতা বলে দলের অন্দরে পরিচিত। তিনি কেন আচমকা শাহজাহান অন্যায় করেছেন বলতে গেলেন, তার কোনও ব্যাখ্যা মেলেনি। ৫ জানুয়ারির জল আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে। কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি জয় সেনগুপ্ত ওই ঘটনার তদন্তের দায়িত্ব দিয়েছে রাজ্য এবং কেন্দ্রের তদন্তকারী সংস্থাকে। আদালত এ ব্যাপারে সিট গঠন করেছে। তাতে রাজ্য পুলিশের এক আইপিএস অফিসার রয়েছেন। রাজ্য পুলিশ তাদের অফিসারের নাম জানিয়ে দিলেও সিবিআই এখনও তাদের অফিসারের নাম জানায়নি। উল্টে তারা ওই নির্দেশ চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চে গিয়েছে। তাদের বক্তব্য, রাজ্য পুলিশ কখনও সিবিআইকে সাহায্য করে না।

আরও পড়ুন: রামমন্দির বা মোদিজি থাকলেই বিজেপির জয় হবেনা, বিস্ফোরক অনুপম

এদিকে গত বুধবার ফের ইডি শাহজাহানের বাড়িতে অভিযান চালিয়েছে। তারা তাঁর একাধিক বাড়ি সিল করেছে। ২৯ জানুয়ারি তাঁকে সিজিও কমপ্লেক্সে হাজিরা দিতে হবে বলে নোটিসও দিয়েছে ইডি। ২৬ জানুয়ারি সাধারণতন্ত্র দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে শাহজাহানের ফেসবুক পোস্ট ভাইরাল হয়। তাঁর ফেসবুকের ডিপি পর্যন্ত বদল করা হয়। আবার এদিনই সেটি উধাও হয়ে গিয়েছে। এই সবই ইডির নজরে রয়েছে। এখন দেখার, সোমবার শাহজাহান হাজিরা দেন কি না। তার মধ্যেই রাজ্যের প্রভাবশালী মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম স্বীকার করলেন, ৫ জানুয়ারি শাহজাহান যা করেছেন, তা অত্যন্ত অন্যায়।

আরও অন্য খবর দেখুন

RELATED ARTICLES

Most Popular

Recent Comments