Placeholder canvas

Placeholder canvas
Homeরাজ্যমনুয়া কাণ্ডের ছায়া এবার অশোকনগরে
Ashoknagar Murder Case

মনুয়া কাণ্ডের ছায়া এবার অশোকনগরে

ভাই এবং প্রেমিকের সঙ্গে পরিকল্পনা করে স্বামীকে খুন করেছে স্ত্রী, অভিযোগে সমানে আসতেই উত্তেজনা অশোকনগরে

Follow Us :

বারাসাত: মনুয়া কাণ্ডের (Manua Case) স্মৃতি উস্কে দিচ্ছে অশোকনগরের ঘটনা। ভাই এবং প্রেমিকের সঙ্গে পরিকল্পনা করে স্বামীকে খুন করেছে স্ত্রী, অভিযোগে সমানে আসতেই চূড়ান্ত উত্তেজনা অশোকনগরের (Ashoknagar) শিমুলতলা এলাকায়। জানা যাচ্ছে, মৃত যুবকের নাম হারাধন রায়, বয়স ৩৫। বাড়ি অশোকনগর পুরসভার ২২ নম্বর ওয়ার্ডের শিমুলতলা এলাকায়। কয়েক বছর আগে হারাধনের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল সবিতার। পেশায় দিনমজুর হারাধনের স্ত্রী সবিতা বারাসতে একটি পানশালায় নর্তকীর কাজ করেন। বেশ কিছুদিন ধরেই বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন সবিতা, বলেই জানা যাচ্ছে। হারাধন ও সবিতার তিন সন্তানও রয়েছে। বিষয়টি জানাজানি হতেই স্বামী-স্ত্রীর অশান্তি শুরু হয়। অশান্তি মেটাতে এলাকায় সালিশি সভাও বসেছিল। শেষ পর্যন্ত, হারাধনকে ছেড়ে সবিতা তাঁর প্রেমিকের সঙ্গেই থাকতে শুরু করেন।

এইসময়, শ্রমিকের কাজ নিয়ে মাস তিনেক আগে ওড়িশায় চলে যান হারাধন। পরিবারের দাবি, সম্প্রতি সবিতা ফোন করে একসঙ্গে থাকবেন বলে অশোকনগরে চলে আসতে বলেন হারাধনকে। স্ত্রীর কথা শুনে এক সপ্তাহ আগে ফেরেন হারাধন। বারাসতে ভাড়া বাড়িতে ছিলেন। শনিবার সকালে বারাসতের ন’পাড়ায় রেলের কারশেড এলাকার রেললাইনের ধারে হারাধনের দেহ পায় বারাসত রেল পুলিশ। রেল পুলিশের কাছে খবর পেয়ে দেহ শনাক্ত করেন হারাধনের পরিবার (Ashoknagar Murder Case)।

শনিবার রাতে হারাধনের দেহ অশোকনগরের শিমুলতলায় পৌঁছতেই মৃতদেহ রেখে বিক্ষোভ দেখায় মৃতের পরিবার এবং স্থানীয়রা। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এদিন উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে পুলিশকে ঘিরে চলে বিক্ষোভ। জনরোষের মুখে পড়ে মৃতের স্ত্রী সবিতা এবং শ্যালক। ঘটনায় ইতিমধ্যেই সবিতার প্রেমিককে আটক করেছে অশোকনগর থানার পুলিশ (Ashoknagar Police)।

আরও পড়ুন: নকলে বাধা, স্কুলে তাণ্ডব মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের মে মাসে বারাসাতের হৃদয়পুরে নিজের বাড়িতে খুন হন অনুপম সিং। সেই ঘটনায় নাম জড়ায় তাঁর স্ত্রী মনুয়া মজুমদার ও তাঁর প্রেমিক অজিত রায়ের। প্রেমিকের সাথে সংসার বাঁধতে পথের কাঁটা সরাতেই প্রেমিক অজিতের সাথে রীতিমতো পরিকল্পনা করেই স্বামী অনুপমকে ঠান্ডা মাথায় খুন করেন মনুয়া। ষড়যন্ত্র করে স্বামীকে খুনের ঘটনায় উত্তর ২৪ পরগনার মনুয়া ও তাঁর প্রেমিকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সাজা ঘোষণা করেছে বারাসাত চতুর্থ ফাস্ট ট্র্যাক কোর্ট। এছাড়াও দুজনেরই ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা হয়েছে। শনিবার রাতে হারাধনের দেহ উদ্ধারের পর সেই স্মৃতিই আবার ফিরে এল।

আরও খবর দেখুন

RELATED ARTICLES

Most Popular

Recent Comments